অাইনি ব্যবস্থা না নেওয়ায় সাংবাদিক নির্যাতন বাড়ছে;মানববন্ধনে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ

0
112

.প্রতিনিয়তই দেশে সাংবাদিক নির্যাতনের সংখ্যা বাড়ছে। সাংবাদিকরা দেশ ও জাতির কথা বলতে গিয়ে অব্যাহতভাবে প্রতিনিয়ত নানান নিষ্ঠুর নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। কিন্তু সাংবাদিক নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা না নেয়ার কারণে দেশে সাংবাদিক নির্যাতন দিন দিন বেড়েই চলছে। এর পাশাপাশি মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের জেলে পাঠানো হচ্ছে। এতে করে গণমাধ্যমের বাকস্বাধীনতা খর্ব করা হচ্ছে। আজ ২০ জানুয়ারি ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত রংপুর প্রেসকাব চত্ত্বরে বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। বর্তমান দেশের আলোচিত নির্যাতিত সাংবাদিক খায়রুল আলম রফিক ও সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফাসহ দেশে বিভিন্ন সময় সাংবাদিকদের নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে রিপোর্টার্স ক্লাব রংপুর, সিটি প্রেসকাব, রিপোর্টার্স ইউনিটি, মাহিগঞ্জ প্রেসক্লাব, তাজহাট প্রেসক্লাব, দৈনিক আমাদের কন্ঠ রংপুর ব্যুরো অফিস, বাংলাদেশ অনলাইন সাংবাদিক কল্যাণ ইউনিয়ন (বসকো)সহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের ব্যানারে ২ ঘন্টা ব্যাপী বিশাল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সিনিয়র সাংবাদিক ও দৈনিক প্রতিদিনের বার্তা’র নির্বাহী সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম বাবলার সভাপতিত্বে বিশাল মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মাছরাঙ্গা টিভির রংপুর অফিস ইনচার্জ ও রংপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সাধারণ সম্পাদক রফিক সরকার, একাত্তর টিভির রংপুর অফিস প্রধান ও রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ বায়োজিদ আহম্মেদ, দৈনিক আমাদের কন্ঠের রংপুর অফিস প্রধান ও দৈনিক প্রথম খবরের নির্বাহী সম্পাদক তাজিদুল ইসলাম লাল, মাহিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি বাবলু নাগ, রংপুর সিটি প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান বাবলু, রংপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির যুগ্ম সম্পাদক রনজিত দাস, বাংলাদেশ তৃণমুল সাংবাদিক কল্যাণ সোসাইটির সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম, দৈনিক সাইফ এর স্টাফ রিপোর্টার বি ও সাংবাদিক হায়াত মাহমুদ মানিক, সাবেক ছাত্র নেতা পলাশ কান্তি নাগ, রংপুরের পীরগঞ্জের আলোর সংবাদ এর প্রকাশক ও সম্পাদক আঃ করিম সরকার, রংপুর ফটো জার্নালিষ্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও কালের কন্ঠের রংপুরের আলোকচিত্রী আদর রহমান, বদরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল আলম আপন, ছান্দসিক এর সাধারণ সম্পাদক ও সাহিত্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মমিন উদ্দিন পাটোয়ারী, তৃণমুল সাংবাদিক সোসাটির সাধারণ সম্পাদক এসএম ফজলুল করিম লিটন, সন্ধ্যাবানী পত্রিকার রংপুর ব্যুরো প্রধান এজাজ আহম্মেদ প্রমুখ।.
মানববন্ধনে সাংবাদিক নেতারা দাবী করেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আইজিপি সাংবাদিকদের সুরা দিতে হবে এবং তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। করোনাকালীন দুর্যোগ মুহুর্তে সাংবাদিকরা নিবেদিতভাবে কাজ করেছেন। তারা ঠিকমত বেতন পাননা। তারপরে তারা দেশের হয়ে সরকারের উন্নয়ন ও প্রগতির পক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন। কোন দুর্নীতি এবং অনিয়মের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ হলেই তাদের উপর নেমে অমানষিক নির্যাতন। তারা নিবেদিতভাবে মাঠে-ঘাটে কাজ করছে, আবার নির্যাতনের শিকারও হচ্ছে, এটা মেনে নেয়া যায় না। বক্তারা আরও বলেন, আমাদের দুর্বল ভাববেন না। সাংবাদিক সমাজ জেগে উঠলে নির্যাতনকারী, হামলাকারীরা টিকে থাকতে পারবেন না। সাংবাদিকদের সুরা দিতে হবে এবং তাদের পাশে থাকতে হবে। সাংবাদিকরা আহত হচ্ছেন কেন? স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং আইজিপির কাছে জবাব চাই। সাংবাদিকরা গণমানুষের কথা বলেন, সরকারের উন্নয়ন ও নানা অসঙ্গতি তুলে ধরেন। এতে জীবনের ঝুঁকি আছে জেনেও তারা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকেন। বক্তারা আরও বলেন, বর্তমানে আলোচিত এই দুইজন নির্যাতিত সাংবাদিকের বিরুদ্ধে একাধিক মিথ্যা মামলা করেছেন ওই দুই পুলিশ কর্মকতাসহ কয়েকজন। মানববন্ধন থেকে সকল মিথ্যা মামলা দ্রুত প্রত্যাহার, তাদের উন্নত চিকিৎসা, ক্ষতিপুরণসহ জান-মালের নিরাপত্তার দাবিও জানানো হয়।

সমগ্র অনুষ্ঠানটির সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন রংপুর মেট্রোপলিটন তাজহাট প্রেসক্লাবের আহবায়ক এসএম জাকির হোসাইন। এসময় রংপুরের বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক্স, অনলাইন নিউজপোর্টালে কর্মরত সাংবাদিকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক এবং পেশাজীবী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন