জাজিরায় শিক্ষকের বাড়ি দখল, হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ

0
487

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরের জাজিরা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের ঢালী কান্দি এলাকার মৃত আবুল হাসেম কাজী’র ছেলে ও মনাই ছৈয়াল কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাস্টার মোকলেসুর রহমানের বাড়ি দখল, হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় নারী ও শিশু সহ ৬ আহত হয়েছে। শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জাজিরা থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
এ ব্যাপারে মাস্টার মোকলেসুর রহমান জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ শরীয়তপুরের জাজিরা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের ঢালী কান্দি এলাকার মৃত আবুল হাসেম কাজী’র ছেলে ও মনাই ছৈয়াল কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাস্টার মোকলেসুর রহমানের সাথে পার্শ্ববর্তী মজিরব ঢালীর সাথে পূর্বশক্রতা রয়েছে। মাস্টার মোকলেসুর রহমানের জমিতে বায়নাসূত্রে মালিক কহিনুর বেগম ওই বাড়িতে বসবাস করে আসছে। দীর্ঘদিন ধরেই স্থানীয় প্রভাবশালী ওই প্রতিবেশী মজিবর ঢালী গং মাস্টার মোকলেসের বাড়ি দখলের পায়তারা করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার সকালে মজিবর ঢালীর নেতৃত্বে জোসনা বেগম, দিদার ঢালী, শিরিন আক্তার, সোনিয়া ও রুমানা আক্তার সহ বেশ কয়েকজন মাস্টার মোকলেসের বাড়িতে বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। এসময় ওই বাড়িতে থাকা বাড়ির বায়নাসূত্রে মালিক কহিনুর বেগম, তার ৫ বছর বয়সী শিশু কন্যা, মা মমতাজ বেগম, ভাই হৃদয় ঢালী, বোন ববিতা ও লাকি আক্তার আহত হয়। আহতদের জাজিরাসহ বিভিন্নস্থানে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এসময় নগদ ৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং সর্বমোট প্রায় ৮ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সাধন করে।
এ ব্যাপারে ওই জমির মালিক মোকলেসুর রহমান বলেন, আমার দখলের উদ্দ্যেশে দীর্ঘদিন ধরেই স্থানীয় প্রভাবশালী মজিবর ঢালী গং মাস্টার মোকলেসের বাড়ি দখলের পায়তারা করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার সকালে মাস্টার মোকলেসের বাড়িতে বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়ে নগদ ৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং সর্বমোট প্রায় ৮ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সাধন করে। আমি এর বিচার চাই।
আহত কহিনুর বেগম বলেন, আমি মাস্টার মোকলেসুর রহমানের জমি বায়নাসূত্রে ক্রয় করে ওখানে বসবাস করছি। দীর্ঘদিন ধরে মজিবর ঢালী গংরা নানানভাবে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার সকালে আমাদের ওপর হামলা চালায়। এসময় আমার কাছে থাকা নগদ ৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারা। এছাড়াও বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাট করে। আমি এর বিচার চাই।
অন্যদিকে এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের বক্তব্যের জন্য বারবার চেষ্টা করেও তাদেরকে পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে জাজিরা থানার ওসি আজাহারুল ইসলাম সরকার বলেন, এবিষয়ে এখনো পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন