ত্রিশালে বিয়ের নামে প্রতারণা করে অর্থ হাতানোর অভিযোগ

0
248

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রতারণা করে কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে আব্দুল ওয়াদুদ নামের এক প্রতারক । ময়মনসিংহের ত্রিশালের বালিপাড়া এলাকার বাসিন্দা এই প্রতারক সুন্দরী নারী দেখলে প্রেমের ফাদে ফেলে প্রথমে বিয়ে করে । পরে মোটা অংকের যৌতুক দাবী করে । তার দাবীকৃত নির্ধারিত অংকের যৌতুকের টাকা না দিলে অকথ্য নির্যাতন করা হয় তার বিয়ে করা নারীদের । নির্যাতিত নারীরা তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে উল্টো মামলা দিয়ে ভূক্তভোগী তার নিকটজনদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে হয়রানি করে । অভিযোগ রয়েছে, বিয়ে প্রতারক আব্দুল ওয়াদুদকে নিয়ে ইতিমধ্যে ত্রিশাল এবং ময়মনসিংহের আদালতপাড়ায় ব্যাপক গুঞ্জনের সৃষ্টি হয়েছে। খোঁজ নিযে জানা গেছে, বিয়ে প্রতারক চক্রের সক্রিয় সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ ত্রিশাল উপজোর বালিপাড়া গ্রামের তাসলিমা আক্তার, ধলা গ্রামের রুমা আক্তার, গফরগাঁওয়ের পাকাটি গ্রামের সূচনা আক্তার, ময়মনসিংহের মীম আক্তার ছাড়াও অনেক নারীকে বিয়ে করেছেন বলে ভুক্তভোগীরা জানান । এদের মধ্যে একজন বলেন, আমাকে বিয়ে করার আগে আব্দুল ওয়াদুদ তার কাবিননামায় সে নিজেকে অবিবাহিত উল্লেখ করে। আমার নিকট বিয়ের রাতে যৌতুকের টাকা দাবি করে এবং পরক্ষণে আরো টাকা দাবি করে সে। ভূক্তভোগী রুমা আক্তার বলেন, দাবীকৃৃৃৃৃৃৃৃত টাকা না দেয়ায় আমাকে অতথ্য নির্যাতন করে । আমার হাত ভেঙে দেয় ওয়াদুদ । আমি তার বিরুদ্ধে মামলা করলে সে এখন আমার ভাই জাহাঙ্গীরের নামে তার নিজস্ব লোক আব্দুল্লাহ আল মামুনকে বাদী করে উল্টো একটি চাঁদাবাজির অভিযোগ করে। এছাড়াও ওয়াদুদ আমাকে নানাভাবে নাজেহাল করে ভয়ভীতি দেখায়।। ফেসবুকে নগ্ন ছবি পোস্ট করেছে ওই লম্পট। প্রাণনাশেরও হুমকি দিচ্ছে। । ফেসবুকে বিবস্ত্র ছবি ছড়িয়ে দেয়া ছাড়াও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করছে।। ময়মনসিংহের এডিশনাল পুলিশ সুপার (প্রশাসন) জয়িতা শিল্পী জানান, ওয়াদুদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে । তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে । চাঁদাবাজির অভিযোগটি মিথ্যা প্রমান হওয়ায় ফাইনাল দিয়ে ত্রিশাল থানা পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে ।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন