ত্রিশাল ছাত্রলীগে ইমেজ সংকট

0
392

খায়রুল আলম রফিক : ময়মনসিংহের ত্রিশাল ছাত্রলীগের সাবেক দুই নেতা মন্তব্য করে বলেছেন, ঐতিহ্যবাহী ত্রিশালে গৌরবময় পথ পাড়ি দিয়ে আসা ছাত্রলীগ এখন ইমেজ সংকটে ভুগছে । ত্রিশাল ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক এ.কে. এম মাহবুবুল আলম ও সাবেক যুগ্ন আহবায়ক কামাল হোসেন বলেন, বাংলাদেশের প্রাচীনতম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ । ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট তৈরি ও দেশের স্বাধীনতা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এই সংগঠনের ত্রিশাল শাখাকে ঘিরে এখন চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। তারা বলছেন, এখনকার ছাত্রলীগ মুক্ত সংগঠন নয়। এসবের জন্য সংগঠনটির বর্তমান নেতাকর্মীদের আদর্শিক চেতনার অভাব, স্বকীয়তা না থাকা আর মেধাবৃত্তিক চর্চার অনাগ্রহকে দুষছেন তারা। তবে দেশের স্বার্থেই ত্রিশাল ছাত্রলীগের ইমেজ পুনরুদ্ধারের ব্যাপারে সচেতন হতে বর্তমান নেতৃবৃৃন্দের প্রতি অনুরোধ তাদের। ত্রিশাল ছাত্রলীগ শাখার ২০০২ সালের আহবায়ক এ.কে. এম মাহবুবুল আলম বলেন, আমরা যখন পদে ছিলাম , তখন ত্রিশাল ছাত্রলীগে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, জমি দখল ছিলনা । ছাত্রলীগের কেও এসএসপি পাশ করলে তাকে সন্মাননা দিতাম । বাড়ি বাড়ি গিয়ে কর্মী জোগাড় করতাম । বর্তমান কয়েকজন ছাত্রলীগকে বিতর্কিত করছে । তাদেরকে অর্থলোভ ছেড়ে দিতে হবে ।
তিনি বলেন, ত্রিশাল ছাত্রলীগের যে গৌরবময় অতীত তা বর্তমানে অনেকাংশে ম্লান । এর কারণ একসময় যারা বিরোধী দলে থেকে ছাত্রলীগ করেছে তারা দেশ ও জাতির বৃহত্তর উন্নয়নের লক্ষ্যে একটা আদর্শিক সংগ্রাম হিসেবেই রাজনীতিকে বেছে নিয়েছিল। কিন্তু এখনকার সময়ে সবাই রাজনীতিকে ভাগ্য উন্নয়নের সিঁড়ি হিসেবেই নিচ্ছে। কাজেই গুণগত একটা পরিবর্তন এসেছে।
সাবেক যুগ্ন আহবায়ক মোঃ কামাল হোসেন বলেন, আমরা যারা তখন ছাত্রলীগ করতাম । আমাদের কোন চাহিদা ছিল না । সন্ত্রাসী কর্মকান্ড , জমি দখল ছিল না । কর্মী বিপদে পড়লে ঝাপিয়ে পড়তাম । এখন সৎ না থাকায় বিতর্কিত হচ্ছে ।
এখন মেধার চর্চা ও ত্যাগের মনোভাবের অভাব রয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে। আগে পাঠচক্র, সেমিনার, কর্মশালা এসবের মধ্য দিয়ে প্রশিক্ষিত আদর্শিক কর্মী গড়ে তোলা হতো।
এখন সেসব কর্মসূচি নেই। এখন স্বার্থবাদী সামাজিক বাস্তবতায় সবাই স্বার্থকেন্দ্রিক চর্চা করছে। অতীতে যেমন সেবার মানসিকতা নিয়ে মানুষ রাজনীতি করতো আজকের দিনে রাজনীতির মূল চেতনা তা নয়। সবাই স্বার্থ নিয়েই রাজনীতি করতে চাইছে। ছাত্রলীগও এর বাইরে নয়।
উপরোক্ত নেতৃবৃন্দ বলেন, এখন ছাত্রলীগে কেউ নিজ যোগ্যতায় নেতা হয় না। আওয়ামী লীগ নেতাদের পছন্দ অপছন্দের শৃঙ্খলে বন্দি হয়ে আছে এটি। ফলে রাজনীতির আদর্শ চর্চার চেয়ে স্থানীয় নেতাদের মন জোগানোকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন তারা। মেধাবী ও শিক্ষিতদের নেতৃত্বে এনে, সাংস্কৃতিক চর্চায় জোড় দিয়ে ত্রিশাল ছাত্রলীগের হারানো গৌরবময় দিন ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলে দাবি তাদের।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন