শিরোনাম
ত্রিশালে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ত্রিশালে আনন্দঘন পরিবেশে মেয়র আনিছের ৫৩ তম জন্মদিবস পালন শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন দৈনিক পল্লী সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক আজাহার ত্রিশাল উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত জাককানইবি উইমেন লিডার্স প্রকল্পের নতুন কমিটি ঘোষণা;সভাপতি ইরা সম্পাদক আঁখি ময়মনসিংহ সম্মিলিত প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন সভাপতি রবি – সম্পাদক সফিক ত্রিশালে ইউপি নির্বাচনে আ’লীগ প্রার্থীদের জয়ের মূখ্য ভূমিকা ছিল মেয়র আনিছের কানিহারীতে ১নং ওয়ার্ড মেম্বার পদে যুবসমাজের পছন্দের প্রার্থী রাশেদুল ইসলাম রাশেদ বদলগাছীতে ধান ক্ষেতে অজ্ঞাত ব্যক্তির ‘পা’ উদ্ধার করেছে পুলিশ উল্লাপাড়ায় গেম খেলতে বাধা দেয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যা
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০১:০৭ অপরাহ্ন

নড়িয়ায় শিক্ষক পেটানোর অভিযোগে উপজেলা চেয়ারম্যানের ড্রাইভার গ্রেপ্তার

রিপোটারের নাম / ২৭৫৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরের নড়িয়ার উপজেলার ভোজেশ্বরে সুজিত কর্মকার নামে এক শিক্ষককে পেটানোর অভিযোগে নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের ড্রাইভার রিপন হাওলাদারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে মামলার ভিত্তিতে ভোজেশ্বর এলাকা থেকে রিপনকে গ্রেপ্তার করা হয়। সুজিত কর্মকার ডামুড্যা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। অন্যদিকে রিপন হাওলাদার নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হকের সরকারি গাড়ির ড্রাইভার।
ভুক্তভোগী সুজিত কর্মকারসূত্রে জানা যায়, নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর এলাকার বাসিন্দা ও ডামুড্যা উপজেলা সদরের ডামুড্যা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকারের জমি দীর্ঘদিন যাবৎ নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হকের সরকারি গাড়ির ড্রাইভার রিপন হাওলাদার দখলের পায়ঁতারা করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় রিপন মঙ্গলবার বিকালে ওই জমিতে ঘর তুলতে গেলে বাঁধা দেয় সুজিত কর্মকার। এসময় রিপন হাওলাদার দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সুজিত কর্মকারের ওপর হামলা করে। এসময় সুজিত কর্মকার গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এঘটনায় সুজিত কর্মকার বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে ওই রাতেই মামলার অভিযোগের ভিত্তিতে রিপনকে গ্রেপ্তার করে নড়িয়া থানা পুলিশ। বুধবার তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
আরও জানা যায়, নড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হকের প্রভাব খাঁটিয়ে রিপন হাওলাদার এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে আসছে। অসহায় ও গরিব মানুষের জমি দখলের অভিযোগও তার বিরুদ্ধে। শিক্ষক সুজিত কর্মকারের ওপর হামলার অভিযোগে জেলা পুলিশ সুপারের বিশেষ তদারকিতে মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর তাঁকে ছাড়ানোর জন্য নানা ধরনের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় তদবিরকারীরা। রিপনকে গ্রেপ্তার করায় স্থানীয় জনসাধারণ পুলিশের প্রতি সন্তষ্টি প্রকাশ ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছে বলেও জানা গেছে।
এ ব্যাপারে সুজিত কর্মকার বলেন, রিপন হাওলাদার প্রভাব খাঁটিয়ে আমার জমি দখলের পায়ঁতারা করে আসছিল। মঙ্গলবার বিকালে আমার জমিতে রিপন ঘর তুলতে গেলে বাঁধা দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার ওপর হামলা করে। আমি নড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি। আমি এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার চাই।
এ ব্যাপারে নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, মামলার অভিযোগের ভিত্তিতে রিপনকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ