ফকরুদ্দীন আহমেদ এর কবিতাঃ কৃষ্ণচূড়ার বাহার

0
340

কৃষ্ণচূড়ার বাহার
——————
ফকরুদ্দীন আহমেদ
৩/৫/২০২০

স্বপ্ন নিয়ে বুনেছিলেন শিশু কৃষ্ণচূড়া,
সবাই তারা যৌবন পেয়ে দিচ্ছেন ফুলের ছড়া।
ত্রিশালের ঐ মহাসড়কে চল হেটে আসি,
ফুলেরা সব পেখম খুলে দিয়ে মহাহাসি।

যেজন যাচ্ছে সেজন পাচ্ছে কৃষ্ণচূড়ার গন্ধ,
ফুলের শোভায় সেজেছে ত্রিশাল বিশাল মনমুগ্ধ।
যার ইশারায় কৃষ্ণচূড়া মহাসড়কে খেলছে দুলায়,
লাল রঙিণ বৈশাখী দিন আনন্দের হৃদয় খুশির মেলায়।
কৃষ্ণচুড়া ডাকছে তোমায়
আর থেকোনা একটু ঘুমায়,
অপেক্ষাতে যাচ্ছে সময়
দেখে যাওনা একটু আমায়।

অভিমানী কৃষ্ণচূড়া ডাকছে তাকে আসছে নাতো সে, আসছে বহুজন।
“অভিমান করোনা কৃষ্ণচূড়া
ভূলেননি সে তোমাদের”
তোমাদের রাখছে মনে ঠিকই তোমরাই তাঁর স্মৃতির হৃদয় বন।

হে কৃষ্ণচূড়ার কৃষ্ণকলি?
তোমাদের একটি কথা বলি।

স্বপ্নময় মানুষটি আজ আছে বহুদুর,
তোমাদের একদিন দেখতে আসবে
পারি দিয়ে বিশাল সমুদ্রর।

তোমারা ছিলে শিশু সেদিন
বড় হয়েছ আজ,
তোমাদের মত বড় হতে
নিজেকে করে নিয়েছে সাজ।

সাত সমুদ্র তের নদী পাড়ি দিচ্ছেন
জ্ঞানার্জনে,
তোমাদের একদিন দেখতে আসবে স্বপ্নহৃদয় হাসি নিয়ে।
তোমরা যেদিন বড় হবে ডাকবে লোকে কৃষ্ণচূড়ার বন,
তোমাদের মাঝে লেখা থাকবে স্বপ্নমানব আবু জাফর রিপন।

উৎসর্গ- আবু জাফর রিপন
সাবেক –
ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার।
ও এই কৃষ্ণচূড়া গাছের স্বপ্নস্রষ্টা

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন