ময়মনসিংহের আঞ্জুমান ইদগাহ মাঠে ৩দিন ব্যাপী জেলা ভিত্তিক ইজতেমা প্রস্তুুতি চলছে

0
112


অারিফ রব্বানী : ময়মনসিংহের কেন্দ্রীয় আঞ্জুমান ইদগাহ মময়দানে আগামী ৭নভেম্বর বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর আম-বয়ানের মধ্যদিয়ে শুরু হবে জেলা ভিত্তিক তাবলীগ জামাতের বার্ষিক ইসলামিক মহা-সম্মেলন ইজতেমা। তাবলীগের হেফাজতীর মুলধারা দিল্লীর নিজাম উদ্দীনপন্থীদের উদ্যোগে আগামী ৭ই নভেম্বর থেকে ৯ই নভেম্বর পর্যন্ত তিনদিন ব্যাপী এই জেলা ভিত্তিক ইজতেমা চলবে। ইতোমধ্যে প্রস্তুুত করা হচ্ছে ইজতেমা ময়দান। এই ইজতেমা এর আগে শেরপুর,জামালপুর,নেত্রকোনা জেলায় সম্পন্ন হলেও ময়মনসিংহে এটাই প্রথম ইজতেমা বলে জানান তাবলীগের হেফজতী জামাতের জিম্মাদার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড.মোঃ মোজাফফর হোসেন।

জেলার বিভিন্ন উপজেলার ইউনিয়নগুলো থেকে এরই মধ্যে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা আসতে শুরু করেছেন ইজতেমা মাঠে। উক্ত ইজতেমায় প্রায় ১০হাজার মুসল্লীর সমাগম ঘটবে বলে আশা পোষন করে তাবলীগ জামাতের জিম্মাদার প্রফেসর ড.মোজাফফর জানান- আগামী ৭নভেম্বর ইজতেমার প্রথম প্রহর শুরু হয়ে শেষ হবে ৯ই নভেম্বর বাদ ফজর আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে। তাবলীগের চেইন অব কমান্ড নিয়ে আলেমদের মাঝে মতবিরোধ থাকলেও যেহেতু এটা দ্বীনের কাজ,আল্লাহর কাজ তাই এখানে কোন প্রকার অপৃতিকর ঘটনা ঘটার আশঙ্কাও নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আঞ্জুমান ইদগাহ মাঠের ইজতেমা ময়দানের বিশাল এড়িয়ার জমির উপর নির্মিত সুবিশাল প্যান্ডেলের খুঁটিতে নম্বরপ্লেট, খিত্তা নম্বর, জুড়নেওয়ালি জামাতের কামরা, তাশকিল কামরা, হালকা নম্বর বসানোর কাজ এরই মধ্যে চলছে। সুস্পষ্টভাবে বয়ান শোনার জন্য পুরো মাঠে শব্দ প্রতিধ্বনিরোধক প্রায় শতাদিক বিশেষ মাইক বসানো হচ্ছে।

কোনো রকম বৈষয়িক লাভের আশা না করে, কেবল আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য দ্বীনের মেহনত করে ইজতেমা ময়দানে এরই মধ্যে আসতে শুরু করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। প্রতিদিন ফজর,জোহর,আছর,মাগরিব বাদ এই ইজতেমায় তাবলীগের বয়ান শুরু হবে। কাকরাইল মসজিদের মুরুববীরা এতে বয়ান করবেন।

ইজতেমা ময়দানে প্রবেশের জন্য খোলা রাখা হবে প্রায় ৪/৫টি পথ। নিরাপত্তার জন্য আবেদন করা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগীতা প্রত্যাশা করেছেন বলেও জানিয়েছেন জামাতের জিম্মাদার প্রফেসর ড.মোজাফফর হোসেন। উক্ত ইজতেমা মাঠের অন্যান্য জিম্মাদাররা হলেন-বাংলাদেশ কৃষি বিদ্যালয়ের প্রফেসর ড.এস এম রহমত উল্লাহ,প্রফেসর মাহমুদ,প্রফেসর ড.নাঈম উদ্দীন,বিনার প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড.জহুরুল ইসলাম প্রমূখ।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন