শরিয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় প্রতিপক্ষের হামলায় নারী সহ আহত ৫

0
358

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর বাজারের নদীর পাড় সংলগ্ন স্থানীয় পাট ব্যবসায়ী আক্তার সরদারের বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু সহ ৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মুলফৎগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
ভুক্তভোগী ও স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর বাজারের নদীর পাড় সংলগ্ন স্থানীয় পাট ব্যবসায়ী আক্তার সরদার ও তার প্রতিবেশী জলিল সরদারের সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় শনিবার দুপুরে আক্তার সরদারের স্ত্রী হোসনে আরা’র সাথে জলিল সরদারের স্ত্রী হেনা বেগমের বাকবিতান্ড ঘটে। একপর্যায়ে হেনা বেগমের নেতৃত্বে জাবেদ হাওলাদার, সোলেমান, সজীব সহ ১৫/২০ জন লোক হোসনে আরা ও তার দুই মেয়ে মুন, মিথিলাকে মারধর করে ও বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এসময় আক্তার সরদারের বড় ভাই লিয়াকত সরদার বাধাঁ দিলে তাকেও মারধর করে। পরে খবর পেয়ে আক্তার সরদার আসলে তাকে মারধর করে হামলাকারীরা। এ ঘটনায় নারী ও শিশু সহ ৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মুলফৎগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে পাট ব্যবসায়ী আক্তার সরদার বলেন, জলিল সরদারের স্ত্রী হেনা বেগম দলবল নিয়ে আমার বাড়ি হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে। এসময় আমাদের ঘরে থাকা টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে গেছে। আমাকে আমার স্ত্রী, ২ কন্যা, বড়ভাই কে মারধর করে। আমি মামলার প্রস্তুতির নিচ্ছি। আমি এর বিচার চাই।
অপর দিকে অভিযুক্ত জলিল সরদারের স্ত্রী হেনা বেগমের বক্তব্যের জন্য বারবার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায় নি।
এ ব্যাপারে নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, দুই পরিবারের মধ্যে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

আপনার মতামত কমেন্টস করুন