1. info@pollysangbad.com : polazhar :
শিরোনাম :
ময়মনসিংহের কোতোয়ালী পুলিশের অভিযানে বিদেশী পিস্তলসহ জজ মিয়া গ্রেফতার ত্রিশাল সরকারি প্রাঃ বিদ্যালয় এবিএম আনিছুজ্জামান এমপিকে সংবর্ধনা ত্রিশালে বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস পালিত ত্রিশালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী উদযাপনে দ্বিতীয় দিন ত্রিশালে ইউপি সদস্য কামাল হোসেন আজীবন জনগনের সেবা দিতে চান ত্রিশালে কবি নজরুলের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী পালনে প্রস্ততি সভা অনুষ্ঠিত ত্রিশালে সংকল্প একাডেমীর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত ত্রিশালে শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করলেন আনিছুজ্জামান এমপি ত্রিশালে শিলাবৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি জনগনের সেবা দিতে অফিস উদ্বোধন করলেন আনিছুজ্জামান এমপি

মেয়র টিটু বিপিন পার্ককে ফিরিয়ে দিল তার মর্যাদা,ঐতিহ্য ও সম্মান

  • আপডেট সময় বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৩১ বার পড়া হয়েছে

প্রায় ২০০বৎসরের প্রাচীন বিপিন পার্ক একসময় পরিনত হয়েছিল ভবঘুড়ে, নেশাখোর,ও অসামাজিক কর্মকান্ডের অভয়ারন্য। কিন্তুু ২০১৩ইং সালে ময়মনসিংহের এই ঐতিয্যবাহী পার্কটিকে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ইকরামুল হক টিটু সংস্কার করে ফিরিয়ে দেয় তার ঐতিহাসিক মর্যাদা ও ঐতিহ্য। বিপিন পার্কের গৌরবময় ইতিহাস আছে।এই পার্কটিতে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের সভা থেকে শুরু করে পাকিস্থান বিরোধী বাঙালির স্বাধীকার আন্দোলনের অনেক সভা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।এখানেই ময়মনসিংহের ছাত্রদের উদ্যোগে ১৯৪৭ সালের ডিসেম্বরে সর্বপ্রথম রাষ্ট্র ভাষার পক্ষে প্রথম জনসভা হয়। সেই থেকে একাধিকবার ভাষা আন্দোলনের দাবিতে ১৯৫২ সাল পর্যন্ত সভা সমাবেশ হয়েছে বিপিন পার্ক থেকে। গনতান্ত্রিক আন্দোলন এবং সমাজতন্ত্রের আন্দোলনের অনেক দেশবরেন্য রাজনৈতিক নেতা এই বিপিন পার্কে জনতার সামনে তাদের আদর্শের কথা তূলে ধরেছেন। তখন বিপিন পার্ক থেকে আমরাও একনায়ক ও স্বৈরাচারদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে বিক্ষোভ মিছিল ও মশাল মিছিল বের করেছি। তারপর এক সময় রাজনৈতিক কর্মকান্ড থেকে হারিয়ে গেল বিপিন পার্ক।পরিনত হল নেশাখোর,ও অসামাজিক লোকদের আশ্রয়স্থলে। সন্ধ্যার পর বিপিন পার্ক আলোর অভাবে হয়ে যেত ভূতুড়ে পার্ক। অপ্রিয় হলেও সত্য ময়মনসিংহের কোন এমপি, মন্ত্রীরা বিপিন পার্কের ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করেননি। মেয়ের টিটু ২০১৩ সালে ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী বিপিন পার্ককে সংষ্কার করে আলোকউজ্জল করে তূলেছেন। তিনি এপ্রজন্ম ও আগামী প্রজন্মের কাছে বিপিন পার্ককে এমন ভাবে তূলে ধরার চেষ্টা করেছেন যাতে তারা আমাদের ময়মনসিংহের অতীতের গৌরবময় রাজনৈতিক ইতিহাস সমন্ধে জানতে পারে। বিপিন পার্ক এখন নেশাখোরদের পরিবর্তে শিশু ও বৃদ্ধদের বিনোদনের স্থানে পরিনত হয়েছে। এরজন্য আমরা ময়মনসিংহবাসী মেয়র টিটুকে জানাই অভিন্দন। প্রত্যাশা করি এধরনের মানসিকতা সম্পন্ন মেয়র যেন আমাদের সিটিকর্পোরেশনে বার বার পাই।

লেখক:প্রদীপ ভৌমিক

সিনিয়র সাংবাদিক।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো ক্যাটাগরি
© All rights reserved © 2019 ’পল্লী সংবাদ’
Site Customized By NewsTech.Com